Overblog
Edit post Folge diesem Blog Administration + Create my blog
24. Dezember 2010 5 24 /12 /Dezember /2010 13:56

Ich würde die Terrorregierung des Bangladesh dringend empfehlen, Studentenpolitik zu verbieten. Es ist nicht nur im Interesse des Landes sondern auch im Interesse des Awami-Liga-Terrrors. Einige Sätze könnte man auch in englischer Sprache besser ausdrücken. "Time is runnig out". Ich würde jedoch gerne sehen, dass die Liga bis zum Ende ihrer Legislativ-Periode regiert. Diese könnte nur geschehen, wenn die Awamiliga zu der Tradion der parlamentarischen Demokratie zurück kehrt. Das ganze Land hat sich gegen Liga gestellt. Die Liga regiert das Land nich mit der Macht der Menschen. Daher diese ist meine an die Liga gutgemeinte Aufmerksamkeit. Wenn die Liga vorseitig Sachenpackt, wird es auch nicht unserem Land viel nützen. Die neue Wahl und damit verbundene Zeit und Kosten. Dann die "caretaker government" usw. Das politische System wird dadurch einen "setback" erlitten. Das ist meine Analyse.  Was sagt die Liga in Sachen der Korruption, die vom "transparency international" festgestellt wurde.

 

Hasina ist sehr stolz auf die Regierunszeit von Shaikh Mujib.

 

Using position while in power to grant undue
favour and benefit to one?s relatives, friends and key supporters is a hall-mark
of politics in Bangladesh. All the effective rulers have been accused of either
direct or indirect involvement in large-scale corruption. During the rule of
Sheikh Mujibur Rahman (Mujib) that lasted little over three-and-a-half years
(1972-1975) corruption became a major issue in public discussion. Mujib?s
tendency to grant political and financial benefit to his close relatives and
associates is well-known. Awami League (AL) activists received jobs in
nationalized industries, grew rich as smugglers, appropriated Pakistani houses
and sold off government permits and licenses to the highest bidders (Kochanek,
1993). Sheikh Abu Naser, Mujib?s only brother, and four sisters were believed to
have benefited excessively from their ties of kinship with Mujib (Franda, 1982).
Some of the nouveaux-riches created through the distribution of patronage by the
Mujib government were ring leaders of smuggling operations (Maniruzzaman, 1982).
Election-related corruption was prominent during Mujib?s rule.

 

 

বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

  

জাবি প্রতিনিধি, ২৪ ডিসেম্বর (বিডিন্যাশনাল নিউজ ডটকম):- জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ ক্যাডারদের হাতে সাংবাদিক সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ৩ সাংবাদিক লাঞ্চিত হওয়ার প্রতিবাদে ও দোষীদের বিচার দাবিতে আজ (শুক্রবার) বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে মানববন্ধন করেছে।  জানাযায়, গত ২২ ডিসেম্বর বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে প্রক্টরের উপস্থিতিতে ছাত্রলীগ থেকে বহিষকৃত নেতা আজগর আলীর অনুসারী মীর মশাররফ হোসেন হলের মঈন, লিটন, তন্ময়, অভি, পরশ ও রাহাতের নেতৃত্বে ২৫/৩০ জন ছাত্রলীগ ক্যাডার সাংবাদিক সমিতির সভাপতি পলাশ মাহমুদ ও সম্পাদক সাঈদ জুনাইদসহ ৩ সাংবাদিকের উপর হামলা চালায়। ওই দিনই বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (জাবিসাস) প্রক্টর বরাবর লিখিত অভিযোগ করলে উপাচার্য ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু পরবর্তীতে কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সমিতি ৭দিনের কর্মসূচী ঘোষণা করে। কর্মসূচীর প্রথম দিন (বৃহস্পতিবার) উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি প্রদান ও মুখে কালো কাপড় বেধে মৌন মিছিল করে সাংবাদিকবৃন্দ।  শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টায় সাংবাদিক সমিতির পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে মানববন্ধন করে। ঘটনার তিন দিন পার হলেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন হামলায় নেতৃত্বদানকারী ৭সন্ত্রাসী কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া ছাড়া আর কোন পদক্ষেপ নেয় নি। এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আরজু মিয়া বলেন, ‘খুব শীঘ্রই ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবির ছাত্রলীগের চাপে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে প্রশাসন সুত্র জানিয়েছে। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে জনসংযোগ অফিস থেকে এক বিবৃতিতে ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হবে জানানো হয়েছে।

 

Diesen Post teilen
Repost0
Published by Alamgirkingpin